লক্ষ্মীপুরশিক্ষা

ভবানীগঞ্জ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটির নির্বাচনে একজন যোগ্য প্রার্থী সৈকত

ম্যানিজিং কমিটির নির্বাচনে একজন যোগ্য প্রার্থী সৈকত

 

ডালিম কুমার দাস টিটু ঃ আসছে আগামী বৃহস্পতিবার (২৬ মে) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ভবানীগঞ্জ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটির নির্বাচন। নির্বাচনে অভিভাবক সদস্য হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন ভবানীগঞ্জের কৃতি সন্তান , শিক্ষিত , মার্জিত সকলের প্রিয় আব্দুল্যাহ আল মাহমুদ সৈকত। ব্যাক্তি জীবনে তিনি একজন শিক্ষক । বর্তমানে নিজের প্রতিষ্ঠিত সৈয়দ শিরিন গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। একজন সৎ নিষ্ঠাবান শিক্ষিত ব্যাক্তি বিদ্যালয়ের দায়িত্বে থাকলে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন উন্নয়ন, শিক্ষার মান ,সৃজনশীল শিক্ষা ব্যবস্থা এবং ডিজিটাল বিদ্যালয় গঠনে ভূমিকা রাখতে পারবেন বলে মনে করেন ভবানীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিবাবকরা। ছেলেদের খেলাধুলার প্রতি দারুন উৎসাহ দেন তিনি । তিনি মনে করেন এরা যদি খেলাধুলার প্রতি মনযোগি হয় তাহলে খারাপ পথ এবং নেশা থেকে দুরে থাকবে । তাইতো লেখাপড়ার পাশাপাশি সবসময় ছেলেদের খেলাধুলার প্রতি উৎসাহ দিয়ে থাকেন । তিনি নিজেও একজন তুখোড় ফুটবল খেলোয়ার । আব্দুল্যাহ আল মাহমুদ সৈকত মাস্টার্স শেষ করে সিস্টেম ইন্টিগরেশন ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে প্রশিকাতে কর্মরত ছিলেন তারপর রিজিওনাল ম্যানেজার হিসেবে জাতীয় পর্যায়ের একটি এনজিও টিএমএসএস কর্মরত ছিলেন এরপর তার মেধাকে কাজে লাগানোর জন্য বেছে নিলেন শিক্ষকতা পেশাকে । প্রথমে তিনি অক্সফোর্ড মডেল কলেজের তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ের একজন প্রভাষক ছিলেন পাশাপাশি তিনি ভবানীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে আইসিটি পড়াতেন। পরবর্তিতে টুমচর আসাদ একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজের অতিথি শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেছেন। তিনি ভাবলেন নিজ এলাকার মেয়েদের শিক্ষিত করে তুলতে হলে কিছু একটা করতে হবে । কারন একটি দেশের মা শিক্ষিত হলে সেই জাতি খুব তাড়াতাড়ি শিক্ষিত জাতি হিসেবে পরিচিত হবে। তারই ধারাবহিকতায় তিনি প্রতিষ্ঠিত করলে সৈয়দ শিরিন গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ । বর্তমানে তিনি অধ্যক্ষ হিসেবে সেখানে দায়িত্ব পালন করছেন। আগামী বৃহস্পতিবার ম্যানিজিং কমিটির নির্বাচনে তিনি জয়ী হলে বিদ্যালয়টিকে একটি অত্যাধুনিক মডেল বিদ্যালয় হিসেবে তৈরি করতে কাজ করবেন তিনি। বিদ্যালয়ের ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রাখা , লেখাপড়া ও খেলাধুলার মান উন্নয়ন করা, স্কুলে হোস্টেলের ব্যবস্থা করা , প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকা সময়ে মনিটরিং করা , অভিভাবক এবং স্কুল কতৃপক্ষের সবার সাথে আলোচনার মাধ্যমে সমন্বয় করে বিদ্যালয়ের উন্নয়ন এবং শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে কাজ করার প্রত্যয় ব্যাক্ত করে ইশতেহার ঘোষণা করেন এই প্রার্থী। তিনি বলেন, আগামী ২৬ মে বৃহস্পতিবারের নির্বাচনে ১ নং ব্যালটে আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে বিদ্যালয়ের উন্নয়ন এবং শিক্ষার মান বৃদ্ধি করতে অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ জানাই । অভিভাবকরা মনে করেন আব্দুল্যাহ আল মাহমুদ সৈকতকে ভবানিগঞ্জ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য করতে পারলে তারা নিশ্চিন্তে থাকতে পারবেন। কারন সৈকত বিদ্যালয়ের উন্নয়নের পাশাপাশি প্রত্যেকটি ছেলেমেয়েদের অভিভাবকের দায়িত্ব পালনে অঘ্রণী ভূমিকা রাখবেন বলে মনে করেনে তারা।

Related Articles

how do you feel about this website ?

Back to top button
%d bloggers like this: