লক্ষ্মীপুর

লক্ষ্মীপুরে প্রাণ নাশের ভয়ে পরিষদে যেতে পারেননা চেয়ারম্যান মানিক

লক্ষ্মীপুরে প্রাণ নাশের ভয়ে পরিষদে যেতে পারেননা চেয়ারম্যান মানিক

 

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি  ঃলক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিন মানিককে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ভয়ে তিনি ইউপি কার্যালয়ে যাননা। সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

বুধবার (১৩ এপ্রিল) নিজ বাড়িতে  সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন।লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, ২৯ মার্চ তার ফেসবুক হ্যাকের মাধ্যমে  প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তি করে একটি স্ট্যাটাস দেয়। স্থানীয় একজন ফোনে বিষয়টি জানালে সঙ্গে সঙ্গে তিনি তা ডিলিট করানো হয়। তাৎক্ষণিক তিনি নিজেই চন্দ্রগঞ্জ থানায় গিয়ে সাধারণ ডায়েরি করেন। এবং মোবাইলটা পুলিশ জব্দ করে।  বর্তমানে মোবাইলটি এখনো পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

সালাহ উদ্দিন মানিক জানান, ফেসবুক সম্পর্কে তার ধারণা খুবই কম। বাড়ির পাশের এক চাচাতো ভাই তাকে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ড খুলে দেয়। ফেসবুকের পাসওয়ার্ডও তার জানা নেই।

এদিকে কুশাখালী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন তার  ছেলে এবং স্থানীয় লোকজন দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। ইউপি কার্যালয়ে গেলে তাকে (মানিক) হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এ ভয়ে গত কয়েকদিন তিনি কার্যালয়ে যেতে পারছে না। এতে পরিষদের কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। ইউপি কার্যালয়ের সামনে লাল দাগ দিয়ে তার ব্যাঙ্গাত্বক ছবিসহ ব্যানার ঝুলিয়ে রেখেছে।

বিষয়টি জানতে সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আমিনের বাড়িতে গেলে তিনি সাংবাদিকদের সামনে কথা বলতে রাজি হননি।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেহ উদ্দিন বলেন, মানিক চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির বিষয়টি জানা নেই। তার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে বলে তিনি একটি জিডি করেছেন। ঘটনাটি সিআইডি সাইবার ক্রাইমে তদন্ত চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, মানিক কুশাখালী ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি। ২০০২ থেকে টানা ১০ বছর তিনি চেয়ারম্যান ছিলেন। গেল ২৬ ডিসেম্বর ইউপি নির্বাচনে তিনি পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। বিএনপি সমর্থিত এ চেয়ারম্যানের সঙ্গে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আমিনসহ ৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

Related Articles

how do you feel about this website ?

Back to top button
%d bloggers like this: