Home

লক্ষ্মীপুরে সদর উপজেলায় কেউ হারালেন নৌকা আবার কেউ হলেন মাঝি

ডালিম কুমার দাস টিটু ঃচতুর্থ ধাপের নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় কেউ হারালেন নৌকা আবার কেউ হলেন মাঝি। ধাপে ধাপে সারা দেশের ইউপি নির্বাচন ২০২১ অনুষ্ঠিত হচ্ছে । আগামী ২৬ ডিসেম্বর লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ১৫ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড।১৫ টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে । সদর উপজেলায় এবার বেশ কিছু নতুন নৌকার মাঝিকে দলীয় প্রতীক পেতে দেখা গেছে।মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) রাতে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। সদর উপজেলার ১৫ টি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক পেয়েছেন যারা ১নং উত্তর হামছাদি ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান এমরান হোসনে নান্নু  ৫নং পার্বতীনগর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন আহমেদ  ভূঁইয়া, ৭নং বশিকপুর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান কাশেম জিহাদি,৮নং দত্তপাড়া ইউনিয়নে এ টি এম কামাল, ৯নং উত্তর জয়পুর ইউনিয়নে মিজানুর রহমান , ১০নং চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নে আইনুল আহমেদ তানভীর, ১১নং হাজিরপাড়া ইউনিয়নে নূরুল মোরছালিন,১২নং চরশাহী ইউনিয়ন জাহাঙ্গীর আলম রাজু,১৩নং দিগলী ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান শেখ মজিব,১৪নং মান্দারি ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান মিজানুর রহিম,১৬নং শাকচর ইউনিয়নে  মোহাম্মদ  মাহফুজুর রহমান,১৭নং ভবানীগঞ্জ  ইউনিয়নে আবদুল খালেদ বাদল , ১৮নং কুশাখালী ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান নরুল আমিন, ২০নং চর রমনী মোহন ইউনিয়নে,বর্তমান চেয়ারম্যান আবু ইউছুফ ছৈয়াল ২১নং টুমচর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান সৈয়দ নুরুল আমিন।রবিবার আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দলের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ড সদর উপজেলার ১৫ টি ইউপির নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, চতুর্থ ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় আগামী ২৫ নভেম্বর। মনোনয়ন পত্র বাছাই ২৯ শে নভেম্বর এবং প্রত্যাহার ৬ই ডিসেম্বর। ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৬ শে ডিসেম্বর।১৫ টি ইউনিয়নের মধ্যে হাজীরপাড়া ও ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নে ভোট গ্রহন ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে । দলীয় প্রতীক নৌকা প্রার্থীরা তাদের অনুভূতি জানিয়ে বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমানত নৌকা ২৬ ডিসেম্বর তারিখ বিপুল ভোটে বিজয় লাভ করবে। ২৬ ডিসেম্বর নৌকার বিজয়ের মধ্য দিয়ে সরকারের সোনার বাংলাদেশের গ্রাম হবে শহর এই প্রতিপাদ্য বিষয়টিকে বাস্তবায়ন করতে , উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পাশে দাাঁড়ানোর প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন তারা। এছাড়াও যারা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ভোট করবে দল তাদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে আছে এমনটাই জানালেন জেল-উপজেলার আওয়ামীলীগ নেতারা। অনেক নেতাকর্মীরা ইউপি নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করলেও তাদের মধ্যে থেকেই যাচাই-বাছাই করে দলীয় প্রার্থী চুড়ান্ত করছে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকরা।

 

 

 

 

 

 

 

 

Related Articles

how do you feel about this website ?

Back to top button
%d bloggers like this: