Monday , July 26 2021
Breaking News
Home / হোম / লক্ষ্মীপুরে সাস্থ্যবিধি ছাড়াই চলছে কোরবানীর পশুরহাট , দাম বেশির কারনে বাজার গুলোতে ক্রেতাসংকট

লক্ষ্মীপুরে সাস্থ্যবিধি ছাড়াই চলছে কোরবানীর পশুরহাট , দাম বেশির কারনে বাজার গুলোতে ক্রেতাসংকট

ওমর ফারুক মিঠু ঃ লক্ষ্মীপুর কঠোর লকডাউনের মধ্যেও বিভিন্ন জায়গায় বসছে কোরবানীর পশুর হাট । পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে বিক্রেতারা পশু নিয়ে হাটে অবস্থান করলেও ক্রেতা সংকটে পড়েছে তারা। আগের ছেয়ে গরুর দাম অনেক বেশি । মহামারি করোন ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সারা দেশে কঠোর লকডাউনের মধ্যে এইভাবে পশুর হাট অনেকটাই ঝুঁিকতে পেলবে লক্ষ্মীপুরবাসীকে। তবে সাস্থবিধি মেনে কয়েকটি বাজার বসার অনুমতি থাকলেও কোথাও সাস্থবিধির তেমন কোন বালাই দেখতে পাওয়া যায়নি।জেলা সদর সহ প্রতিটি উপজেলায় সাস্থবিধি মেনে পশুর হাটের অনুমোদন থাকলেও কোথাও সাস্থ্যবিধির তেমন কোন বালাই নেই। লক্ষ্মীপুর পৌর গরুর বাজার সহ জেলার বিভিন্ন জায়গায় বসেছে পশুর হাট। তবে সাস্থ্যবিধি না মেনে পশুর হাট গুলোতে গাদাগাদি করে চলাফেরা করছে মানুষ। নাই কোন মাস্ক কিংবা স্যানেটাইজারিং ব্যবস্থা। এতে স্বাস্থ ঝুঁকিসহ করোনায় সংক্রমণ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রশাসনেরও তেমন কোন নজরদারি দেখা যায়নি । লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার পৌর গরুর বাজার, নাগের হাটে , কমলনগর উপজেলার তোরাবগঞ্জ সহ বিভিন্ন পশুর হাটে গিয়ে দেখা যাচ্ছে মানুষের উপচে পড়া ভিড় । সাস্থবিধির কোন বালাই নেই । তবে এবার কোরবানীর পশুর দাম গত বছরের তুলনা অনেক বেশি জানালেন ক্রেতারা। অন্যদিকে বর্তমান পরিস্থিতিতে গরু বিক্রি করতে না পারলে লোকসান গুনতে হবে খামারী ও পশু ব্যবসায়ীদের। কিন্তু ক্রেতা শুণ্যতা থাকায় বিপাকে আছেন তারা। অন্য দিকে কামারের দোকানেও তেমন একটা ভিড় দেখা যায়না । আগের মত এখন আর শোনা যাচ্ছেনা ঠন ঠন হাতুড়ির শব্দ । অলস সময় কাটাচ্ছেন তারা । করোনার কারনে আগের মত দা চুরি কেউ বানাতেও আসেনা কিনতেও আসেনা। দা চুরি বিক্রেতারাও অলস সময় পার করছেন । সবমিলিয়ে পশুর হাটগুলো এখনও জমে ওঠেনি। বিভিন্ন গরু বাজার ঘুরে দেখা যায়, পশুর হাটটিতে গরু কম’ ক্রেতাও কম’ তবে ব্যাপারি ছাড়া যাদের কাছে গরু রয়েছে তারা অধিকাংশই কশাই (মাংস বিক্রেতা) হওয়ায় এ বাজারে গরুর দাম অনেক বেশি।  খামারিরা  জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণেও অনেক ক্রেতারা হাটে আসছেন না। গরুর দাম খুবই কম বলে আমাদের খরচের সাথে মিলছেনা । আশা আছে যেহেতু  লকডাউন শিথিল হয়েছে এবার পশুর হাটে ক্রেতার সংখ্যা বাড়বে। তবে সদর উপজেলা প্রাণী কর্মকর্তা যোবায়ের হোসেন জানান , এবারের লক্ষ্মীপুর  সদরের চাহিদা অনুযায়ী ২০,০০০ গরু রয়েছে । লকডাউন শিথিলের পর সম্প্রতি আমাদের কাছে বাজার বসার সরকারি ভাবে একটি অনুমোদন এসছে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় ৬ টি বাজার বসবে । তবে দাম এখন পর্যন্ত স্বাভাবিক রয়েছে। চাহিদা পরিমানে যথেষ্ট গরু রয়েছে বলেও তিনি জানান

Check Also

লক্ষ্মীপুরে করোনা সংক্রমন ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন

বিশেষ প্রতিনিধি:লক্ষ্মীপুরে করোনা সংক্রমন ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে আছে ।  ঈদের পর শুরু হওয়া লকডাউনের  ২য় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: